ধর্ম

বিয়ে হয়ে গেছে সুতরাং স্বামীর প্রতি অটোমেটিক আকর্ষণ কাজ করা উচিৎ

অনেক ভাইয়েরা মনে করেন, বিয়ে হয়ে গেছে সুতরাং স্বামীর প্রতি অটোমেটিক আকর্ষণ কাজ করা উচিৎ। হালাল সংগীর উপর আকর্ষণ অনুভব করার ব্যাপার গুলো এমন যে, একটা হলো দায়িত্ব, আরেকটা হলো দায়িত্বের প্রতি ভাল লাগা – দুইটা দুই জিনিস। বাসাতে লুংগি আর স্যান্ডো গেঞ্জি পরা ভাইয়েরা চান, স্ত্রী তার জন্য শাড়ি পরে সেজে আসুক। অথচ পাশাপাশি মানানোরও একটা ব্যাপার থাকে। বিপরীত মানুষটারও পছন্দ অপছন্দের ব্যাপার আছে।
দিনের পর দিন গোসল না করা, মাথার চুলে শ্যাম্পু না করা, হাত পায়ের নখ না কাটা, ভাইটাও চান স্ত্রীর শ্যাম্পু করা চুলের রোমান্টিক ঘ্রাণ নিতে, স্ত্রীর মেহেদি রাংগানো আংগুলের সৌন্দর্য দেখে চোখ জুড়াতে। নিজে ব্যায়াম না করে শরীরে মেদ জমানো ভাইটিও পছন্দ করেন স্ত্রীর স্লিম ফিগার। নিজে পরিপাটি নাহয়ে সংগিনীকে পরিপাটি প্রত্যাশা করা যৌক্তিক নয়, অসৌজন্যও। পুরুষদেরও সাজগোজ করা উচিৎ।
ভাইয়েরা, রেগুলার মাথার চুলে শ্যাম্পু কন্ডিশনার দিন, যেন বিলি করা যায়। দাঁড়ির গ্লেজ বাড়ান, বাসায় সাধ্যের মধ্যে সুন্দর পোশাক, পারফিউম ব্যবহার করুন। প্রেমিকার মন জয় করতে যা যা দরকার।
আল্লাহ তায়ালা সুন্দর ও পবিত্র, তিনি সুন্দর পছন্দ করেন, পরিচ্ছন্নতা পছন্দ করেন।

-শাহ্ মুহাম্মদ তন্ময়

আল্লাহর কসম! তারাও চায় যে, তোমরা তাদের জন্য পরিপাটি হবে:

আলুথালু চুলে ধুলোমাখা এক লোক তার স্ত্রীকে নিয়ে উমর রাযি, এর দরবারে এল। মহিলাটি বলল, আমরা কেউই বিবাহবন্ধন রাখতে চাই না৷ না আমি আর না এ। কিন্তু, কারণটা কী? উমর রাযি, মহিলার অপছন্দনীয়তার কথা জেনে লোকটাকে গোসলখানায় পাঠালেন। তাকে চুল পরিপাটি করে নখ কেটে আসতে বললেন। পরিস্কার – পরিচ্ছন্ন হয়ে লোকটি স্ত্রীর দিকে এগিয়ে আসছিল৷ তখন মহিলাটি বিস্মিত হয়ে পিছিয়ে গেল৷ এরপর ঠাওর করে চিন্তে পারল– এযে, তারই স্বামী। অতঃপর মহিলাটি তার নিজের দাবি থেকে সরে আসল। ছেড়ে দিল তালাকের আবেদন। এভাবেই পরিস্কার- পরিচ্ছন্ন থাকবে। তোমরা পুরুষরা তাদের জন্য সাজসজ্জা গ্রহণ করবে। আল্লাহর কসম! তারাও চায় যে, তোমরা তাদের জন্য পরিপাটি হবে। যেমনি তোমরা চাও, তারা তোমাদের জন্য সেজেগুজে থাকুক।
মূল রেফারেন্স,, দূরুসুশ শাইখ ইবরাহীম দাইশঃ ৫/১৫
এ বই এর রেফারেন্স,,
মুহাম্মদ (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) একজন আদর্শ স্বামী
পৃষ্ঠা নং ৩৫

আইন ব্যবসায়ী

আইনজীবী হলেন 'আইন ব্যবসায়ী', যিনি একজন এ্যাডভোকেট, ব্যারিস্টার, এটর্নি, সলিসিটর বা আইনি উপদেশক। আইনজীবী মূলত আইনের তাত্ত্বিক বিষয়গুলির বাস্তব প্রয়োগের মাধ্যমে ব্যক্তির বা সংস্থার আইনি সমস্যার সমাধানের কাজ করে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button