স্বাস্থ্য সেবা

ফুগু মাছ বা পটকা মাছ পৃথিবীর সব থেকে বিষাক্ত মাছ

ফুগু মাছ বা পটকা মাছ পৃথিবীর সব থেকে বিষাক্ত মাছ। জাপানের সব থেকে জনপ্রিয় আর দামী খাবার হল ফুগু। এইটা এতটাই জনপ্রিয় যে জাপানিরা এইটা খেয়ে মরতেও রাজি। তবে জাপানে আস্ত ফুগু বা সবখানে ফুগু মাছ বিক্রি করা নিষিদ্ধ। শুধুমাত্র লাইসেন্স প্রাপ্ত শেফ এইটা কাটতে এবং রান্না করতে পারে।

ফুগু মাছ বা পটকা মাছ পৃথিবীর সব থেকে বিষাক্ত মাছ:

ফুগু মাছে যে বিষ থাকে তার তুলনায় পটাশিয়াম সায়ানাইড কিছুই না। তাহলে বোঝেন কী পরিমাণ তীব্র এই বিষ! আর এই মাছের বিষাক্ত অংশ গুলার বিষের তীব্রতা সেদ্ধ করলেও যায় না। লিভার, চোখ,নাড়িবুড়িতে বিষ থাকে। এই পার্ট গুলা কেটে আলাদা করে পলিথিনে ভরে বিশেষ প্রক্রিয়ায় বিষ ধ্বংস করা হয়।

ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক চ্যানেলে ৪৫ মিনিটের একটা ডকুমেন্টারি ছিল ফুগু নিয়ে। আপাতত এই ভিডিও টা দেখে নিন।

পটকা মাছ(Puffer Fish) , এর tetradotoxin নামে একটা বিষ আছে যা নিউরোটক্সিন, রেসপিরেটরি মাসেল পেরালাইসিস করে রেসপিরেটরি ফেইলুর করে মৃত্যু ঘটাতে পারে। তাহলে সবার হয় না কেন, অনেকেই খেয়েছেন। উত্তর হল এর শরীরের সব অংশ বিষাক্ত নয়, সবচেয়ে বিষাক্ত হল গোনাড( প্রজনন সম্পর্কিত অংশ) এবং এরা বছরের বিশেষ সময়েই সর্বোচ্চ বিষাক্ত থাকে।
জাপানে খুব দামী ও পপুলার, মৃত্যুও ওখানে সর্বোচ্চ। ওদের ওখানে এই মাছ (সম্ভবত ফুগো ফিস এই জাতীয় একটা নাম, মনে নেই) রান্নার জন্য আলাদা প্রশিক্ষিত cook আছে।
পটকা মাছ একটি টেট্রোডোটক্সিন, একটি শক্তিশালী নিউরোটক্সিন, বিশ প্রজাতির পটকা মাছ বাংলাদেশে পাওয়া যায়, Tetrodotoxin বিষের সাধারণ বৈশিষ্ট্যে গুলো মুখ দিয়ে লালা পড়া,বমি বমি ভাব , বমি করা, ডায়রিয়া; পেটে ব্যথা; মাথা ঘোরা; ইত্যাদি। দুর্ভাগ্যক্রমে টেট্রাডোটক্সিন বিষের কোনও নির্দিষ্ট প্রতিষেধক নেই এবং রেসপাইরেটরি মাসল(respiratory muscle) পেরালাইস হয়ে মানুষ মৃত্যুবরণ করে। এই ধরণের বিষ প্রতিরোধের মূল উপায় হ’ল সচেতনতা।

আইন ব্যবসায়ী

আইনজীবী হলেন 'আইন ব্যবসায়ী', যিনি একজন এ্যাডভোকেট, ব্যারিস্টার, এটর্নি, সলিসিটর বা আইনি উপদেশক। আইনজীবী মূলত আইনের তাত্ত্বিক বিষয়গুলির বাস্তব প্রয়োগের মাধ্যমে ব্যক্তির বা সংস্থার আইনি সমস্যার সমাধানের কাজ করে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button